ঢাকা   Thursday,30 June 2022

কোভিড-১৯ সহায়তা কার্যক্রম

about1

বুরো বাংলাদেশের কোভিড-১৯ সহায়তা কার্যক্রম
২০২১ সালেও সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশকেও এক চরম প্রতিকূল পরিস্থিতি অতিক্রম করতে হচ্ছে। ফলে বাধ্য হয়েই সরকারকে লকডাউনের মতো কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হয়েছে। লকডাউনের কারণে ও জীবন বাঁচানোর তাগিদে মানুষ ঘরে অবস্থান করেছে। শিল্প কারখানা, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত ও গণপরিবহন বন্ধ থাকায় সাধারণ মানুষের আয়-রোজগারের পথ বহুলাংশে সীমিত হয়ে পড়ে। এর প্রভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় দরিদ্র ও নি¤œ আয়ের মানুষ।
স্বাস্থ্য ও খাদ্য ঝুঁকির মধ্যে নিপতিত হওয়া মানুষদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার জন্য বাংলাদেশ সরকার দেশের বেসরকারি সংস্থাগুলোকে নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী এগিয়ে আসার আহ্বান জানায়। সরকারের সেই আহ্বান ও এমআরএর সার্কুলার-৫৫ প্রতিপালন করে বুরো বাংলাদেশ ২০২০ সাল থেকেই দেশব্যাপী খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম শুরু করে এবং এই খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম ২০২১ সালেও চলমান রয়েছে।
মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত হাজার হাজার দরিদ্র ও নি¤œ আয়ের পরিবার বুরো বাংলাদেশের এই খাদ্য সহায়তা কার্যক্রম থেকে ব্যাপকভাবে উপকৃত হচ্ছে। শুধু খাদ্যই নয়, ফেস মাস্ক ও হাত ধোয়ার জন্য তরল সাবানও এই সহায়তার কর্মসূচিতে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। একই সাথে বুরো বাংলাদেশ বিভিন্ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পিপিই, আইসিইউ কার্ডিয়াক মনিটর, অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং ডাক্তার ও নার্সদের জন্য এন-৯৫ মাস্ক বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। উল্লেখ্য, বুরো তার প্রতিটি শাখার কর্মীদের জন্য বিনামূল্যে মাস্ক, গ্লাভস ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছে। একই সাথে জনসাধারণের জন্য অনলাইনে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন রেজিস্ট্রেশন কর্মসূচি বুরো বাংলাদেশ দেশব্যাপী সফলভাবে পরিচালনা করেছে।
নিজস্ব অর্থায়ন ও উদ্যোগের পাশাপাশি বুরো বাংলাদেশ ইস্টার্ন ব্যাংক ও রূপালি ব্যাংকের কর্পোরেট সোস্যাল রেসপনসিবিলিটি (সিএসআর) বাস্তবায়নেও সহযোগিতা করছে। ইতোমধ্যেই ইস্টার্ন ব্যাংকের অর্থায়নে ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলা সদর ও সালটিয়া ইউনিয়নে কোভিড-১৯ এ ক্ষতিগ্রস্ত ১১৬০ পরিবার এবং জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলার চিনাভুলি ইউনিয়নের ৮৪৫টি পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। প্রতি প্যাকেটে ছিলোÑ চাল ২৫ কেজি, আলু ৫ কেজি, ডাল  ২ কেজি, তেল ২ কেজি, লবণ  ১ কেজি। গফরগাঁও উপজেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারমঅ্যান আসরাফ উদ্দীন, বিশেষ অতিথি ছিলেন গফরগাঁও পৌর মেয়র এস এম ইকবাল হোসেন, গফরগাও উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাজুল ইসলাম। জামালপুরে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম জামাল আব্দুন নাছের এবং সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম মাজহারুল ইসলাম। অনুষ্ঠানগুলোতে আরো উপস্থিত ছিলেন বুরো বাংলাদেশের কর্মসূচি সমন্বয়কারী খন্দকার মুখলেছুর রহমান লিটন, বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (টাঙ্গাইল) হারুন অর রশিদ, আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (ময়মনসিংহ) আরিচ হোসেন, আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (মধুপুর) জহিরুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক কর্মকর্তাবৃন্দ। অপর দিকে রংপুর পৌরসভা ও তারাগঞ্জ উপজেলার দুইটি ইউনিয়নে রূপালি ব্যাংকের অর্থায়নে অনরূপ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে বুরো বাংলাদেশ। মোট ১৫০০টি পরিবার এ কার্যক্রমের আওতায় খাদ্য সহায়তা লাভ করে। রংপুর সদরে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. আসিব আহসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. গোলাম রব্বানী, সিটি কর্পোরেশনের প্যানেল মেয়র মোকলেসুর রহমান টিটু, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা এটিএম আক্তারুজ্জামান। তারাগঞ্জে উপস্থিতি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আনিসুর রহমান লিটন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আফজালুল হক সরকার, পূবালী ব্যাংক-রংপুর এর ডিজিএম মো. কামরুজ্জামান এবং ব্যাংটির সৈয়দপুর শাখার ম্যানেজার মো. রবিউল ইসলাম। অনুষ্ঠানগুলোতে আরো উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় ব্যবস্থাপক (রংপুর) মো. আব্দুস সালাম এবং আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (রংপুর) মো. বাহাদুর আলমসহ সংশ্লিষ্ট আঞ্চলিক কর্মকর্তাবৃন্দ।ম